Header Border

ঢাকা, শনিবার, ২০শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৭ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ (গ্রীষ্মকাল) ৩৫.৯৬°সে

আদালতের নির্দেশনার অপেক্ষায় ঝুলে আছে অর্ধলক্ষাধিক শিক্ষকের ভাগ্য!

সময় সংবাদ লাইভ রিপোর্টঃ বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষের (এনটিআরসিএ) কর্তৃক ৫৪ হাজার শিক্ষক নিয়োগে গণবিজ্ঞপ্তির ফল প্রকাশ নিয়ে কিছু জটিলতা সৃষ্টি হয়েছে। বিষয়টি সমাধানে আদালতে আপিল করা হয়েছে। আদালত কি নির্দেশনা দেয় এখন সেটির দিকে তাকিয়ে আছে ৫৪ হাজার নিয়োগপ্রার্থী। এনটিআরসিএ জানিয়েছে আদালত থেকে নির্দেশনা না পাওয়া পর্যন্ত গণবিজ্ঞপ্তির ফল প্রকাশ করা সম্ভব হবে না।

তথ্যমতে, ১ থেকে ১২তম নিবন্ধনধারী আড়াই হাজার প্রার্থীকে চলতি জুন মাসে এমপিওভুক্ত বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে নিয়োগের নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। হাইকোর্টের দেয়া রায় চ্যালেঞ্জ করে রায়ের উপর স্থগিতাদেশ চেয়ে আপিল করেছে এনটিআরসিএ। আগামী রোববার (২৭ জুন) আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে এটির শুনানি অনুষ্ঠিত হবে।

 

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে শুনানি শেষে যদি আদালত ১-১২তম নিবন্ধনধারীদের নিয়োগের উপর স্থগিতাদেশ দেয় তাহলে শিগগিরই গণবিজ্ঞপ্তির ফল প্রকাশ করবে এনটিআরসিএ। তবে স্থগিতাদেশ না পেলে কি করবে এনটিআরসিএ সে বিষয়ে স্পষ্ট করে কিছুই বলছে না কর্তৃপক্ষ।

এনটিআরসিএর কর্মকর্তা বলছেন, আদালত অবমাননার যে অভিযোগ তাদের উপর করা হয়েছে সেটির কোনো ভিত্তি নেই। কেননা ২০১৭ সালে এনটিআরসিএর নিয়োগ নিয়ে আদালত যে রায় দিয়েছিল সেটিই বাস্তবায়ন করছেন তারা। ফলে আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে ‘ল পয়েন্টে’ আলোচনায় এই বিষয়টিই আদালতকে বোঝোবেন তারা। ফলে আদালতের রায় তাদের পক্ষেই আসবে।

উল্লেখ্য, গত ৩০ মার্চ ৫৪ হাজার নিবন্ধনধারীকে নিয়োগ কার্যক্রমের ওপর স্থগিতাদেশ দেন উচ্চ আদালত। একই সঙ্গে এনটিআরসিএ পরীক্ষায় উত্তীর্ণ সনদধারীদের নিয়োগের সুপারিশের রায় বাস্তবায়ন না করায় এনটিআরসিএ চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগে করা আবেদন নিষ্পত্তি করেন হাইকোর্ট।

এর আগে ২০১৭ সালের ১৪ ডিসেম্বর সংশ্লিষ্ট বিষয়ে হাইকোর্টের রায়ের কয়েক দফা নির্দেশনার মধ্যে ৫ নম্বর নির্দেশনায় সম্মিলিত মেধাতালিকা অনুযায়ী রিট আবেদনকারী এবং অন্যান্য আবেদনকারীর নিয়োগের কথা বলা হয়। দীর্ঘ সময়েও রায় বাস্তবায়ন না করায় রিট আবেদনকারীদের মধ্যে প্রায় আড়াই হাজার জন এনটিআরসিএর চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আদালত অবমাননার আবেদন করেন। ২০১৯ সালের ১৪ জানুয়ারি এনটিআরসিএর চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার রুল জারি করে হাইকোর্ট। কিন্তু রুল বিচারাধীন থাকাবস্থায় বিজ্ঞপ্তি জারি করে এনটিআরসিএ। এর ধারাবাহিকতায় বিষয়টি শুনানির জন্য আসে।

গত ৩০ মার্চ তৃতীয় গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে এনটিআরসিএ। গণবিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ৫৪ হাজার ৩০৪টি শূন্য পদের মধ্যে স্কুল ও কলেজ পর্যায়ে ৩১ হাজার ১০১টি শূন্য পদ রয়েছে। এর মধ্যে এমপিওভুক্ত পদ ২৬ হাজার ৮৩৮টি। মাদ্রাসা ও কারিগরি প্রতিষ্ঠানে মোট শূন্য পদ ২০ হাজার ৯৯৬টি। এর মধ্যে ১৯ হাজার ১৫৪টি এমপিওভুক্ত। মোট ৫৪ হাজার ৩০৪টি পদের মধ্যে ২ হাজার ২০৭টি এমপিও পদে রিট মামলায় অংশগ্রহণ করা প্রার্থী আবেদনের সুযোগ পান। এতে বিভিন্ন পদের বিপরীতে আবেদন জমা পড়েছে প্রায় ৯০ লাখ। সে হিসাবে এখন পর্যন্ত একটি পদের জন্য ১৬০ জনের বেশি আবেদন জমা পড়েছে। এ হিসাবে এনটিআরসিএ ফি বাবদ আবেদনকারীর কাছ থেকে ৯০ কোটি টাকা পেয়েছে।

মুহাম্মদ কামরুল হাসান ,স্টাফ রিপোর্টার,সময় সংবাদ লাইভ

আপনার মতামত লিখুন :

আরও পড়ুন

বোতলজাত সয়াবিন তেলের দাম বাড়াল সরকার
উপজেলায় এমপি মন্ত্রীর সন্তান-স্বজনরা প্রার্থী হলে ব্যবস্থা
সব বিরোধী দলের উপজেলা নির্বাচন বর্জন
৯৬ হাজার শিক্ষক নিয়োগ আবেদন শুরু, যেভাবে করবেন আবেদন
৯৬ হাজার শিক্ষক নিয়োগ আবেদন শুরু, যেভাবে করবেন আবেদন
মুজিবনগর দিবসে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

আরও খবর