Header Border

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৮ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৪ঠা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ (বর্ষাকাল) ৩০.৯৬°সে

করোনা নিয়ন্ত্রণে প্রথম দিন থেকেই কাজ করার অঙ্গীকার ঐতিহাসিক জয় পেতে যাচ্ছি -জো বাইডেন

সময় সংবাদ লাইভ রিপোর্টঃ   মার্কিন নির্বাচনে ব্যাটলগ্রাউন্ড রাজ্যগুলোতে রিপাবলিকান দলীয় প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পকে পেছনে ফেলার পর ডেমোক্র্যাট দলীয় প্রার্থী জো বাইডেন বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জিততে চলেছেন তিনি। তিনি বলেছেন, স্পষ্টত আমাদের সংখ্যাগরিষ্ঠতা রয়েছে। এ নির্বাচনে আমরা জয়ী হতে চলেছি। বিজয় ঘোষণা শুধু সময়ের ব্যাপার। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জয়ী হতে হলে একজন প্রার্থীকে ২৭০টি ইলেকটোরাল ভোট পেতে হবে। সেই হিসেবে এখন পর্যন্ত ২৬৪টি ইলেকটোরাল ভোট পেয়েছেন ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেন। অপরদিকে বর্তমান প্রেসিডেন্ট ও রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প পেয়েছেন ২১৪টি ভোট। এদিকে এখনও ফলাফল জানতে বাকি অন্তত পাঁচটি অঙ্গরাজ্যের। বিবিসি-সিএনএনের মতো কিছু গণমাধ্যম অবশ্য অ্যারিজোনাকেও রেখেছে এ তালিকায়। ফলে প্রশ্ন উঠছে- উন্নত দেশটিতে ভোট গণনায় এত সময় লাগছে কেন? আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলো বলছে, যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনে ফলাফল ঘোষণায় বিলম্ব হওয়ার অন্যতম কারণ- অ্যাবসেন্টি (অনুপস্থিতি) ও প্রভিশনাল (শর্তযুক্ত) ব্যালট। নির্বাচনের চূড়ান্ত ফল আসতে কতটা দেরি হতে পারে, দেরির কারণ কী, তা নিয়ে বিশ্লেষণ তুলে ধরেছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম গার্ডিয়ান। সংবাদমাধ্যমটি বলছে, চূড়ান্ত ফল পেতে বেশ সময় লেগে যেতে পারে।  নির্বাচনের ফলাফল আসতে কয়েক দিন, কয়েক সপ্তাহ এমনকি কয়েক মাসও লেগে যেতে পারে। এটা নির্ভর করছে পরিস্থিতির ওপর। প্রতিবেদন অনুযায়ী, গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গরাজ্যগুলোতে এখনো ভোট গণনা চলছে। পেনসিলভেনিয়া, জর্জিয়া, অ্যারিজোনা, নেভাদা ও নর্থ ক্যারোলাইনায় ভোট গণনা এখনো শেষ হয়নি। বাকি রয়েছে আলাস্কাতেও। নির্বাচনে ভোট গণনার যেন শেষ নেই। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জর্জিয়া অঙ্গরাজ্যের সেক্রেটারি অব স্টেট ব্র্যাড রাফেন্সপার্গার আবার জর্জিয়ায় ভোট গণনার ঘোষণা দিয়েছেন। এ পর্যন্ত পাওয়া ফলাফল অনুযায়ী এ অঙ্গরাজ্যটিতেও রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পের চেয়ে এগিয়ে আছেন ডেমোক্রেট পার্টির জো বাইডেন।
জাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণে এ কথা বলেন বাইডেন। আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যম রয়টার্সের প্রতিবেদনে এ কথা বলা হয়। মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে চূড়ান্ত জয় পেলে দায়িত্বগ্রহণের প্রথম দিন থেকেই মহামারি করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রণে কাজ করবেন জো বাইডেন।  তিনি বলেছেন, দায়িত্বগ্রহণের পর করোনা মহামারি নিয়ন্ত্রণে আমি কোনো সময় অপচয় করবো না।  ডেলওয়্যারে তার নিজ শহর ওয়েলমিংটনে এক ভাষণে বাইডেন এ কথা বলেন।  তিনি বলেন, আমি সবাইকে জানাতে চাই, এ ভাইরাস নিয়ন্ত্রণে আমাদের পরিকল্পনা প্রথম দিন থেকে কার্যকর করতে যাচ্ছি। বাইডেন বলেন, একটি জাতি হিসেবে নিরাময়ের জন্য আমাদের ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। আর তিনি নির্বাচিত হলে জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করারও প্রতিশ্রুতি দেন। এ সময় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ভোটে হারাতে বাইডেন নিজের আত্মবিশ্বাসের কথা বলেন। ভোট গণনায় দেরি হলেও নিজেকে বিজয়ী ঘোষণা থেকে সামান্য দূরে আছেন এ ডেমোক্র্যাট প্রার্থী।
জাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণে বাইডেন বলেন, এটি পরিষ্কার, আমরা জয়ী হতে চলেছি। আমার রানিং মেট কমলা হ্যারিস এরইমধ্যে বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে মিটিংও করেছেন। তারা হোয়াইট হাউসের জন্য প্রস্তুত রয়েছেন। তিনি বলেন, আমরা সাত কোটি ৪০ লাখের বেশি ভোট পেয়েছি। যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে এতো বেশি ভোট আর কোনো প্রেসিডেন্ট পাননি। হোয়াইট হাউসে যাওয়ার প্রস্তুতি ব্যাপারে ইতোমধ্যে ডেমোক্র্যাট দলীয় ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিসকে নিয়ে বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন বাইডেন। তিনি বলেন, সংখ্যাগুলো আমাদের বলছে…এটা স্পষ্ট এবং বলা যায় যে, আমরা জিততে চলেছি। ২০০০ সালের পর মার্কিন নির্বাচনের ফলের জন্য এবারের মতো কখনই অপেক্ষা করতে হয়নি। গত মঙ্গলবার দেশটিতে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হলেও এখন পর্যন্ত গণনা শেষ হয়নি। কারণ দেশটিতে এবার রেকর্ড ১০ কোটিরও বেশি মানুষ আগাম ভোট দিয়েছেন।
৩০০ ইলেকটোরাল ভোটের আশায় বাইডেন: মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের চূড়ান্ত ফলাফল এখনও হাতে এসে পৌঁছায়নি। বেশ কিছু অঙ্গরাজ্যের ফলাফল এখনও বাকি আছে। পরবর্তী মার্কিন প্রেসিডেন্ট কে হতে যাচ্ছেন তা নিয়ে উদ্বেগ আর উৎকণ্ঠা যেন কাটছেই না। তবে ইতোমধ্যেই নির্বাচনের ফলাফল কিছুটা আঁচ করা যাচ্ছে।  দেশটির মোট ২৪ কোটি ভোটারের মধ্যে ১৯ কোটি নির্বাচনে ভোট দেয়ার জন্য নিবন্ধন করেছিলেন। করোনাভাইরাস মহামারির কারণে জনসমাগম এড়াতে এবার দেশটিতে আগাম ভোটের পরিমাণ বেশি ছিল। ভোটগ্রহণ হলেও এখনও হাজার হাজার ভোট গণনা বাকি রয়েছে। দুই প্রতিদ্বন্দ্বীর ভাগ্য ঝুলে আছে আলাস্কা (৩টি ইলেকটোরাল কলেজ ভোট), নেভাদা (৬টি ইলেকটোরাল কলেজ ভোট), পেনসিলভানিয়া (২০টি), নর্থ ক্যারোলিনা (১৫টি) এবং জর্জিয়া (১৬টি) অঙ্গরাজ্যে। এই পাঁচ অঙ্গরাজ্যের মধ্যে নেভাদা, পেনসিলভানিয়া ও জর্জিয়ায় এগিয়ে আছেন জো বাইডেন। এছাড়া আলাস্কা এবং নর্থ ক্যারোলিনায় এগিয়ে আছে ডোনাল্ড ট্রাম্প।
গার্ডিয়ানের প্রতিবেদন অনুযায়ী, এখন পর্যন্ত যে পাঁচ অঙ্গরাজ্যের ভোটের ফলাফল বাকি আছে সেখানকার বেশিরভাগ অঙ্গরাজ্যেই ট্রাম্পের চেয়ে এগিয়ে আছেন বাইডেন। যদিও এসব অঙ্গরাজ্যে ট্রাম্প এবং বাইডেনের মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই চলছে। অর্থাৎ জয়ের খুব কাছেই আছেন বাইডেন। তার মাত্র ৬টি ইলেকটোরাল ভোটের প্রয়োজন। জর্জিয়া, নর্থ ক্যারোলিনা, পেনসিলভানিয়া এবং নেভাদার কোনো একটিতে জয় পেলেই জিতে যাবেন বাইডেন। অপরদিকে জয়ী হতে ট্রাম্পের প্রয়োজন আরও ৫৬টি ভোট। অর্থাৎ যেসব অঙ্গরাজ্যের ভোটের ফলাফল এখনও ঘোষণা করা হয়নি সেসব অঙ্গরাজ্যের সবগুলোতেই বাইডেনকে হারাতে হবে ট্রাম্পের।
জর্জিয়া যখন নির্বাচনে জয়ের চাবিকাঠি: যুক্তরাষ্ট্রের জর্জিয়া অঙ্গরাজ্যের সেক্রেটারি অব স্টেট ব্র্যাড রাফেন্সবার্গার রাজ্যে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে নতুন করে ভোট গণনার ঘোষণা দিয়েছেন। তিনি বলছেন, ৪ হাজার ১৬৯টি ভোট গণনা এখনও বাকি রয়েছে। পাশাপাশি সামরিক বাহিনীর সদস্যদের পাঠানো প্রায় ৮ হাজার ভোট এখন ডাকে রয়েছে। স্থানীয় সময় শুক্রবার দিনের মধ্যে এসে পৌঁছাতে পারলে সেগুলোও গণনা করা হবে বলে তিনি জানিয়েছেন। তিনি বলেন, এই মুহূর্তে জর্জিয়ায় ফল ঘোষণা করা কঠিন। ভোটের ব্যবধান এতই কম যে নতুন করে গণনা করতে হবে। ব্র্যাড রাফেন্সবার্গার বলেন, আমাদের নির্বাচন নিয়ে আগ্রহ জর্জিয়ার সীমান্তের বাইরেও আছে। পুরো দেশের ওপর জর্জিয়ার নির্বাচনের চূড়ান্ত হিসেবের একটা প্রভাব পড়বে, সেটা স্বাভাবিক। এরপরই কোন প্রশ্নের জবাব না দিয়ে রাফেন্সবার্গার চলে যান। তার সহকারী গেব্রিয়েল স্টার্লিং বলেন, ভোট পুনঃগণনার কারণ হচ্ছে দুই প্রার্থীর মধ্যে ব্যবধান খুবই কম। নির্বাচনে কোন বড় ধরনের অনিয়ম তাদের চোখে ধরা পড়েনি বলে তিনি জানান।
তবে আগের ভোট গনণার হিসেব অনুযায়ী জর্জিয়ায় এখন পর্যন্ত ৯৯ শতাংশ ভোট গণনা শেষ হয়েছে। ওই অঙ্গরাজ্যে মোট ইলেকটোরাল ভোটের সংখ্যা ১৬টি। সেখানে এখন পর্যন্ত ট্রাম্প পেয়েছেন ৪৯ দশমিক ৪ শতাংশ ভোট এবং ডোনাল্ড ট্রাম্প পেয়েছেন ৪৯ দশমিক ৩ শতাংশ ভোট। সেখানে জো বাইডেনকে ভোট দিয়েছেন ২৪ লাখ ৫৬ হাজার ৮৪৫ জন। অপরদিকে ট্রাম্প ভোট পেয়েছেন ২৪ লাখ ৫২ হাজার ৮২৫ জন ভোটার। এদিকে, নর্থ ক্যারোলিনায় মোট ইলেকটোরাল ভোট ১৫টি। সেখানে ৯৯ শতাংশ ভোট গণনা শেষ হয়েছে। ওই অঙ্গরাজ্যে ট্রাম্প পেয়েছেন ৫০ দশমিক ১ শতাংশ ভোট। অপরদিকে জো বাইডেন পেয়েছেন ৪৮ দশমিক ৭ শতাংশ। নির্বাচনে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে ভোট দিয়েছেন ২৭ লাখ ৩২ হাজার ৭৮২ জন। অপরদিকে জো বাইডেনকে ভোট দিয়েছেন ২৬ লাখ ৫৬ হাজার ৩০৩ জন।
পেনসিলভানিয়া অঙ্গরাজ্যেও ৯৯ শতাংশ ভোট গণনা শেষ হয়েছে। সেখানে জো বাইডেনকে ভোট দিয়েছেন ৪৯ দশমিক ৬ শতাংশ মানুষ। আর প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে ভোট দিয়েছেন ৪৯ দশমিক ২ শতাংশ। ওই অঙ্গরাজ্যে বাইডেন ৩৩ লাখ ৩৭ হাজার ৬৯টি ভোট পেয়েছেন। অপরদিকে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে ভোট দিয়েছেন ৩৩ লাখ ৮ হাজার ১৯২ জন।
নেভাদায় ইলেকটোরাল ভোট ৬টি। সেখানে এখন পর্যন্ত ভোট গণনা হয়েছে ৮৭ শতাংশ। ওই অঙ্গরাজ্যে জো বাইডেন ভোট পেয়েছেন ৪৯ দশমকি ৮ শতাংশ এবং ডোনাল্ড ট্রাম্প পেয়েছেন ৪৮ শতাংশ ভোট। সেখানে বাইডেনকে ভোট দিয়েছেন ৬ লাখ ৩২ হাজার ৫৫৮ জন এবং ট্রাম্প ভোট পেয়েছেন ৬ লাখ ৯ হাজার ৯০১টি। অপরদিকে আলাস্কায় এখন পর্যন্ত ৫০ শতাংশ ভোট গণনা শেষ হয়েছে। সেখানে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প পেয়েছেন ৬২ দশমিক ১ শতাংশ এবং বাইডেন পেয়েছেন ৩৩ দশমিক ৫ শতাংশ ভোট। অর্থাৎ ট্রাম্পকে ভোট দিয়েছেন ১ লাখ ১৮ হাজার ৬০২ জন। আর বাইডেন পেয়েছেন ৬৩ হাজার ৯৯২টি ভোট।

আপনার মতামত লিখুন :

আরও পড়ুন

হজে গিয়ে ১০ বাংলাদেশির মৃত্যু
ইসরাইলের সামরিক ঘাঁটিতে ভয়াবহ ড্রোন হামলা হিজবুল্লাহর
ফিলিস্তিনকে স্বীকৃতি দিতে সব দেশের প্রতি আহ্বান জাতিসংঘের
মোদি না রাহুল, কে হচ্ছেন ভারতের কান্ডারি?
কেন্দ্রফেরত জরিপের ফলাফল;হ্যাটট্রিক বিজয়ের পথে মোদি
যুদ্ধ বন্ধে নতুন প্রস্তাব দিয়েছে ইসরায়েল

আরও খবর