Header Border

ঢাকা, সোমবার, ২৪শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১০ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ (বর্ষাকাল) ২৮.৯৬°সে

সারাদেশে সর্বোচ্চ সতর্কতায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী

সময় সংবাদ লাইভ রিপোর্ট ঃ  বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপনকে কেন্দ্র করে রাজধানীসহ সারাদেশে সর্বোচ্চ সতর্কতায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। প্রস্তুত রয়েছে পর্যাপ্ত রিজার্ভ ফোর্স, র‌্যাবের ডগ স্কোয়াড। ভিআইপিদের নিরাপত্তায় আকাশে টহল দিবে হেলিকপ্টার। ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা লাভের সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষে আজ বুধবার থেকে বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের আয়োজন করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। এতে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিসহ দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলের পাঁচটি দেশের সরকার ও রাষ্ট্র প্রধান অংশ নেবেন। এছাড়াও আমন্ত্রিত অতিথি রয়েছেন আরও পাঁচশত।
দশ দিনব্যাপী এ বিশাল আয়োজনে বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্র বা সরকার প্রধানদের নিরাপত্তায় ঢাকায় কঠোর পদক্ষেপ নিয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। পুলিশ, র‌্যাব ও গোয়েন্দা দফতরের প্রধানরা সংশ্লিষ্ট ইউনিটের সঙ্গে ইতিমধ্যে দফায় দফায় বৈঠক করে নিরাপত্তা ছক তৈরী করেছে। শীর্ষ পর্যায় থেকে কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে। আইনশৃঙ্খলা ও গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা মঙ্গলবার রাত থেকে মাঠে নেমে পড়েছে। রাজধানীর বিভিন্ন পয়েন্টে নিরাপত্তা চৌকি স্থাপন করে যানকাহন তল্লাশি করবে পুলিশ-র‌্যাব। ১৭ মার্চ থেকে ২৬ মার্চ পর্যন্ত তারা রাজধানীকে নিরাপত্তা চাদরে ঢেকে রাখবে।  রাজধানীতে থাকবে র‌্যাবের বোম্ব স্কোয়াড, পর্যাপ্ত স্ট্রাইকিং রিজার্ভ, স্পেশাল ফোর্সের টিম সার্বক্ষণিকভাবে প্রস্তুত রয়েছে। ক্ষেত্র বিশেষ বিভিন্ন স্থানে সিসি টিভির মাধ্যমে সার্বক্ষণিকভাবে র‌্যাবের নজরদারির ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। সার্বক্ষণিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে র‌্যাব সদরদপ্তর থেকে মনিটরিং করবে র‌্যাব। অনুষ্ঠানে কেউ আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির ব্যাঘাত ঘটাতে চাইলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর থেকে কঠোরতর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এছাড়াও  আমন্ত্রিত অতিথি ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বিরোধী কোনো স্লোগন দিলে তার বিরুদ্ধে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ব্যবস্থা নিবে। নগরবাসীকে এ সময় অপ্রয়োজনে ঘরের বাইরে না যেতেও নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। রাজনৈতিব দলগুলোকে সবাসমাবেশ না করতে ডিএমপির পক্ষ থেকে আগেই বলে দেয়া হয়েছে।
জানা গেছে, অনুষ্ঠানে পাঁচ দিন বিদেশি অতিথিরা উপস্থিত থাকবেন। অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্য বিধি অনুসরণ করে সীমিত আকারে ৫০০ জন আমন্ত্রিত অতিথি উপস্থিত থাকবেন। যাদের মধ্যে রয়েছেন বিভিন্ন দেশের প্রধান, আন্তর্জাতিক সংস্থাপ্রধান ও গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিরা। এই পাঁচ দিন দর্শকরা উপস্থিত থাকতে পারবেন। প্যারেড গ্রাউন্ডের আয়োজনে ১৭ মার্চ সম্মানিত অতিথি হিসেবে থাকবেন মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম মোহামেদ সলিহ। এরপর ১৯ মার্চ শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপাকসে, ২২ মার্চ নেপালের প্রেসিডেন্ট বিদ্যা দেবী ভাণ্ডারী, ২৪ মার্চ ভুটানের প্রধানমন্ত্রী ডা. লোটে শেরিং এবং ২৬ মার্চ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী যোগ দেবেন। ১৭ থেকে ২৬ মার্চ জাতীয় প্যারেড গ্রাউন্ডের কেন্দ্রীয় ওই আয়োজনের পাঁচ দিন তারা যোগ দেবেন।
র‌্যাবের ত্রিমাত্রিক নিরাপত্তা: এদিকে গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে কারওয়ান বাজার র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে র‌্যাব মহাপরিচালক (ডিজি) চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেছেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে কেউ যদি আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি ব্যাঘাত ঘটাতে চায় তাহলে তাদের বিরুদ্ধে র‌্যাব কঠোর থেকে কঠোরতর ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানের নিরাপত্তা ব্যবস্থা বিষয়ে সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।
র‌্যাব ডিজি বলেন, র‌্যাব ডিজি বলেন, সার্বিকভাবে সব ধরনের ঝুঁকি মোকাবিলা করে সার্বক্ষণিক নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হবে। এই অনুষ্ঠানকে সামনে রেখে সারাদেশে র‌্যাব নিরাপত্তা জোরদার করেছে। অনুষ্ঠান চলাকালীন ও অনুষ্ঠান শেষেও র‌্যাবের নিরাপত্তা অব্যাহত থাকবে। তিনি আরও বলেন, র‌্যাবের স্ব স্ব ব্যাটালিয়ন পর্যায়ে কন্ট্রোল রুম স্থাপন করা হয়েছে। অনাকাক্সিক্ষত কোনো তথ্য পেলে র‌্যাবের কন্ট্রোল রুম ও অনলাইনের মাধ্যমেও র‌্যাবের সঙ্গে যে কেউ যোগাযোগ করতে পারবে। সাদা পোশাক ও র‌্যাবের পোশাকেও নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকবে। বিভিন্ন দেশ থেকে আগত ভিভিআইপিদের নিরাপত্তায় র‌্যাবের সদর দফতর থেকে পাঁচ জন অফিসার সার্বক্ষণিক দায়িত্বে নিয়োজিত থাকবে। র‌্যাব ডিজি বলেন, যেকোনো অপ্রীতিকর পরিস্থিতি মোকাবিলায় র‌্যাব সার্বক্ষণিক প্রস্তুত রয়েছে। সিসিটিভির মাধ্যমে সার্বক্ষণিক নজরদারিও করা হবে। চেকপোস্টে অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের শনাক্তকরণে র‌্যাবের নজরদারি থাকবে। এয়ারফোর্সের এয়ার উইং ও হেলিকপ্টার যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবিলায় র‌্যাবের নজরদারিতে থাকবে। বিদেশি অতিথিদের সার্বক্ষণিক প্রটেকশন টহল প্রস্তুত থাকবে।
চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মামুন আরও বলেন, ভিভিআইপিদের হোটেল ও যেসব গুরুত্বপূর্ণ ভ্যানুতে যাতায়াত করবেন, সবগুলোতে র‌্যাবের কড়া নজরদারি থাকবে। এছাড়াও র‌্যাবের সাইবার ক্রাইম ইউনিট সর্বদা নজরদারি করবে। মোদিবিরোধীদের আন্দোলন নিয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, দেশ ও বৃহত্তর জাতির স্বার্থে আমরা আশা করি, তারা এ ধরনের আন্দোলন থেকে বিরত থাকবে। যদি কেউ আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি ব্যাঘাত ঘটাতে চায়, তাহলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
সমাবেশ না করার পরামর্শ: ১৭ থেকে ২৬ মার্চ পর্যন্ত ১০ দিন ঢাকাবাসীকে চলাচল সীমিত রাখার অনুরোধ করেছেন পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) বেনজীর আহমেদ। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদ্যাপন অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়া বিদেশি রাষ্ট্রপ্রধান ও অতিথিদের নিরাপত্তার স্বার্থে নগরে সভা-সমাবেশ না করারও অনুরোধ জানান পুলিশপ্রধান। গত সোমবার রাজধানীর রাজারবাগ বাংলাদেশ পুলিশ সার্ভিস ফাউন্ডেশনের শিক্ষাবৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি এ কথা বলেন। পুলিশের মহাপরিদর্শক বলেছেন, আমরা স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদ্যাপন ও সেই সঙ্গে জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী মুজিব শতবর্ষ উদ্যাপন করতে যাচ্ছি। করোনার সময়ে, আমাদের সঙ্গে পাঁচটি দেশের রাষ্ট্রপ্রধান যুক্ত হবে। এটি আমাদের জন্য সম্মানের বিষয়। আইজিপি বলেছেন, ভিভিআইপিদের নিরাপত্তা প্রদান করা আমাদের রাষ্ট্রীয় কর্তব্য, দেশের কর্তব্য, জনগণের দায়িত্ব। যারা আসছেন তারা ১৮ কোটি মানুষের মেহমান। আমরা চাই জনগণ আমাদের এই মেহমানদের নিরাপত্তা প্রদানে সহায়তা করবে।

আপনার মতামত লিখুন :

আরও পড়ুন

হজে গিয়ে ১০ বাংলাদেশির মৃত্যু
কর ও ভ্যাটের চাপ আরও বাড়বে
ইসরাইলের সামরিক ঘাঁটিতে ভয়াবহ ড্রোন হামলা হিজবুল্লাহর
ফিলিস্তিনকে স্বীকৃতি দিতে সব দেশের প্রতি আহ্বান জাতিসংঘের
মোদি না রাহুল, কে হচ্ছেন ভারতের কান্ডারি?
ঢাকার কাছেই চলে এসেছে সবচেয়ে বিষধর রাসেলস ভাইপার

আরও খবর